ঢাকা২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

জীবিকার তাগিদে পেশা বদলাচ্ছে চরাঞ্চলের মানুষ

বার্তা বিভাগ
নভেম্বর ৯, ২০২৩ ৯:৩৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আনোয়ার হোসেন, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে আমুল পরিবর্তন এসেছে মানুষের জীবন জীবিকায়। নিজের অস্তিত্ব রক্ষায় নিত্যনতুন পেশা বেছে নিচ্ছে মানুষ। বিশেষ করে কৃষিতে জলবায়ু প্রভাবে কৃষি কাজ ছেড়ে অন্য পেশায় ঝুকছে চরাঞ্চলের মানুষ। কখনো অসময় নদী ভাঙ্গন বন্যা কিংবা খরা। আবার কখনো কখনো আগাম শীতের কারণে ফসলের ক্ষতি হওয়ায় অর্থনৈতিক মন্দা এড়াতে দিন দিন বিকল্প পেশাকে চরাঞ্চলের মানুষ।
ফুলছড়ি উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের কৃষক হাবিবুর রহমান বলেন, আমরা আগে বইয়ের পাতায় ছয় ঋতুর দেশ বাংলাদেশ পড়লেও বর্তমানে প্রেক্ষাপট পাল্টে গেছে। জলবায়ু কারণে কাল পরিক্রমার বদল হয়েছে। কেননা গত কয়েক বছর ধরে আশানুরূপ বন্যা নেই। মৌসুমে হচ্ছে প্রচুর বৃষ্টিপাত। এছাড়া ব্রহ্মপুত্র, যমুনায় বন্যা মৌসুমে হচ্ছে নাব্যতা সংকট। ঝুঁকি এড়াতে কৃষি নির্ভর চরের মানুষ গুলো পেশাবদল করে গবাদিপশু পালনে তাদের আগ্রহ বাড়িয়েছে। কেননা প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় বিকল্প কিছু ভাবা ছাড়া উপায় নেই।
মোঃ গোলাম মওলা বলেন, আমি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতাম প্রকল্প শেষ হওয়ায় আমার চাকরি শেষ হয়ে যায়। যখন দেখলাম আমার সংসার চালানো কষ্ট হচ্ছে, তখন চিন্তা করি আমি গরু পালন করব তখন আমি প্রথমিক ভাবে ৪ টি গরু কিনি এখন আমার গরু বিক্রির টাকা দিয়ে একটি ১০০০ লেয়ার মুরগির খামার তৈরি হয়েছে।
ট্যাংরা কান্দি চরের আইলা বেগম বলেন, কয়েক বছর আগে চরের হাতে গোনা কয়েকটি বাড়িতে হাঁস মুরগি ও গরু-ছাগল পালন করতো। এখন চরের অধিকাংশ বাড়িতে গরু ছাগল, ভেড়া মহিষ পালন করছে এছাড়াও অল্প পুঁজিতে অধিক লাভের আশায় গতানুগতিক খামার ছেড়ে ভেড়া প্রজাতির দারুন উন্নত জাতের ছাগল দেশি গরু পালনে ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা। কেননা প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় বিকল্প কিছু ভাবা ছাড়া উপায় নেই । একই এলাকার বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম বলেন, আবহাওয়ার কারণে চড়ে এখন কৃষিতে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে চরাঞ্চলের মানুষকে। অসময়ে বন্যা খড়ার কারণে কৃষিতে তেমন ফসল ফলে না।

তাই এই চরের মানুষের গবাদি পশু পালনের আগ্রহ বেড়েছে। একটি গরু পালন এক বছর পর বিক্রি করলে খরচের তুলনায় লাভ হয় মোটামুটি, কিন্তু একটা ছোট মহিষ ৫০ হাজার টাকা দিয়ে কিনে লালন পালন করে বছর শেষে প্রায় দেড় থেকে পৌনে দুই লাখ টাকা বিক্রি করা যায়। মহিষের জন্য আলাদা করে ফিড ভিটামিন ভুসি খড় কিনতে হয় না। ফলে স্বভাবে বেশি লাভ হয় মহিষে।
চরের প্রতিটি বাড়ির লোকজন এখন পেশা পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়েছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে হয়। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বে-আইনি। যোগাযোগ: হটলাইন: +8801602122404 ,  +8801746765793 (Whatsapp), ই-মেইল: [email protected]