ঢাকা১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ভোলা কলেজে ফ্রিল্যান্সিং এন্ড স্কিল ডেভেলপমেন্ট বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

বার্তা বিভাগ
মার্চ ২২, ২০২৩ ৪:৪৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

মোঃ আওলাদ হোসেন,জেলা প্রতিনিধি-ভোলা:

ভোলা সরকারি কলেজ হিসাববিজ্ঞান বিভাগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয়েছে একদিনের ফ্রিল্যান্সিং এন্ড স্কিল ডেভেলপমেন্ট বিষয়ক কর্মশালা।
গতকাল মঙ্গলবার (২১শে মার্চ)ভোলা সরকারি কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের ৮০০৭ নং কক্ষে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।
হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জনাব নূর মোহাম্মদ মাসুদ স্যারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে কর্মশালার উদ্বোধন করেন ভোলা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. গোলাম জাকারিয়া। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভোলা সরকারি কলেজের উপাদাক্ষ প্রফেসর মো. এনায়েতুল্লাহ ও হিসাববিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর জামাল হোসেন। এছাড়াও উক্ত কর্মশালায় অন্যান্য বিভাগের বিভাগীয় প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থীদের নিয়ে আয়োজিত এই কর্মশালার প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর গোলাম জাকারিয়া বলেন, বেকার সমস্যা দূর করা ও নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং অন্যতম একটি মাধ্যম। বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন এবং অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে ফ্রিল্যাংন্সিং একটি সম্ভাবনাময় খাত।অধ্যক্ষ মহোদয় অংশগ্রহণকারি শিক্ষার্থীদের সম্ভাবনাময় এ খাতে নিজস্ব মেধা ও প্রতিভাকে কাজে লাগিয়ে উন্নয়নের অভিযাত্রায় সামিল হবার আহবান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপাধ্যক্ষ প্রফেসর এনায়েতুল্লাহ বলেন,প্রচলিত চাকরির পেছনে না ছুটে দক্ষতা অর্জন করে ফ্রিল্যান্সিং করলে চাকরির বাজারে যেমন চাপ কমবে তেমনি বেকারত্ব হ্রাস পাবে।এছাড়াও তিনি হিসাববিজ্ঞান বিভাগকে এই ধরনের কর্মশালার আয়োজন করার জন্য ধন্যবাদ জানান।

হিসাববিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর জামাল হোসেন বলেন, আমাদের দেশের অনেক তরুণ তরুণী ফ্রিলান্সার হিসেবে কাজ করে দেশে আনছেন তাদের অর্জিত বৈদেশিক মুদ্রা।ফলে একদিকে তারা নিজেরা যেমন সার্বলম্বী হয়েছেন,তেমনি বৃদ্ধি করছেন দেশের রেমিট্যান্স।

এছাড়াও অন্যান্য বিভাগের বিভাগীয় প্রধানরা তাদের বক্তব্যে বর্তমান বিশ্বে ফ্রিল্যান্সিং এবং স্কিল ডেভেলপমেন্টের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন।

উক্ত কর্মশালায় প্রশিক্ষক হিসেবে ছিলেন ভোলা বাংলাবাজারে অবস্থিত রূপালি ডিজিটাল প্রিন্টের কর্নধার ও প্রশিক্ষক সায়েম চৌধুরী এবং লার্নিং এন্ড আর্নিং প্রজেক্টের ভোলা জেলার সর্বোচ্চ উপার্জনকারী হিসেবে জেলা প্রশাসক থেকে পুরস্কারপ্রাপ্ত মো.মহিন।

কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের শিক্ষা উপকরণ, সকালের নাস্তা, দুপুরের খাবার ও কর্মশালা শেষে সাটিফিকেট তুলে দেওয়া হয়।

কর্মশালাটির সার্বিক পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন হিসাববিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হুমায়ুন কবির।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে হয়। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বে-আইনি। যোগাযোগ: হটলাইন: +8801602122404 ,  +8801746765793 (Whatsapp), ই-মেইল: [email protected]